×
  • ঢাকা
  • সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৫ আশ্বিন ১৪২৮
Active News 24

আবারো এনামুল হককে চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চায় এলাকাবাসী


ইমদাদুল হক | খুলনা প্রতিনিধি প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২১, ০৪:৫৯ পিএম আবারো এনামুল হককে চেয়ারম্যান হিসাবে দেখতে চায় এলাকাবাসী
সংগৃহীত

পাইকগাছা উপজেলার সোলাদানা  ইউনিয়ন পরিষদের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী (আনারস প্রতীক) এস এম এনামুল হকের নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণার মাঠ আবারও জমে উঠেছে। আগামী ২০ সেপ্টেম্বর তারিখের ঘোষিত ইউপি নির্বাচন সামনে রেখে তার নির্বাচনী ইউনিয়নে এক আনন্দঘন আমেজের সৃষ্টি হয়েছে। যা চোখের দৃষ্টিনন্দন কেড়ে নেওয়ার মতো। স্থগিত ইউপি নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই আনারস মার্কা প্রতীকের জয় ধ্বনি এলাকা জুড়ে।

সরেজমিনে গিয়ে ও এলাকাবাসীর নিকট জানা যায়, আনারস মার্কার প্রার্থী এস এম এনামুল হক একজন সৎ দক্ষ ও আদর্শবান রাজনীতিবিদ। তিনি এলাকার মানুষের যেনো মন কেড়ে নিয়েছে এমনটাই  চিত্র অত্র ইউনিয়নে । 

এলাকাবাসী জানান, সোলাদানা ইউনিয়ন পরিষদের বার বার নির্বাচিত চেয়ারম্যান  এস এম এনামুল হক  আকাশ চুম্বী জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। তরুণ উদীয়মান এ প্রতিনিধি সোলাদানা ইউনিয়ন থেকে অল্প বয়সে  পর পর দু-বার নির্বাচন করে বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান  নির্বাচিত হয়ে সর্বমহলের নিকট পরিচিতি লাভ করেছেন। তার  পিতা শুকুর আলী সানা কয়েকবার অপরাজিত ইউপি সদস্য ছিলেন। বড় ভাই এসএম মাহবুবুর রহমান ছিলেন  পাইকগাছা পৌরসভার কয়েকবারের নির্বাচিত মেয়র। 

দু-ভাই এসএম তৈয়েবুর রহমান পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড ও ছোট ভাই এসএম এমদাদুল হক পৌরসভার কয়েকবারের নির্বাচিত কাউন্সিলর। মেঝ ভাই এস এম শহিদুল ইসলাম ছিলেন একজন ইউপি সদস্য। 

এক ভাই স্কুল শিক্ষক, অন্য ভাই লিটন খুলনা জজ কোর্টের একজন বিজ্ঞ আইনজীবী। জনপ্রতিনিধি হিসেবে এ পরিবারটি জনগনের মনি কোঠায় আশ্রয় পাওয়ায় অনেকেই বলেন এরা যতদিন বেচে থাকবে ততদিন জনগণের সেবা করে যাবেন।

জনপ্রতিনিধি  হিসেবে তিনি জীবনের ঝুকি নিয়ে প্রতিটা প্রাকৃতিক দুর্যোগের মধ্যে ইউনিয়নের এ প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্ত পর্যন্ত যেভাবে দুর্যোগ কবলিত মানুষের পাশে ছিলেন তার সঠিক প্রাপ্য বা প্রতিদান দেয়ার জন্য ছায়ার মত তার পাশে থেকে কাজ করে যাচ্ছে বলে এলাকাবাসীর কাছ থেকে জানা গেছে। যেকোন প্রতিকুলতা উপেক্ষা করে যেকোন বিপদে, সুবিধা  অসুবিধা, সালিশ-বিচারে পক্ষপাতহীন কাজ করায় জনগনের মনি কোঠায় স্থান করে নিয়েছে। নাম দিয়েছে মানবতার ফেরিওয়ালা। সরকারি ত্রাণ সামগ্রী  বিতরণের পাশাপাশি নিজ অর্থে খাদ্য সামগ্রী, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্রীড়া সামগ্রী, শিক্ষার্থীদের মাঝে ব্যাগ,খাতা, কলমসহ শিক্ষা সামগ্রী  বিতরণ করে আসছেন।

বিভিন্ন ভাবে এলাকার অনেক বেকার যুবকদের বেকারত্ব ঘুচাতে ব্যবসায়ী কাজে লাগিয়েছে।  সামাজিক উন্নয়ন, চেয়ারম্যান  হিসেবে দক্ষতার সাথে সফলতা অর্জন করায় তিনি বার বার পুরস্কৃত হয়েছেন ইউএনডিপিসহ নানা সংস্থা থেকে। 

আগামী ইউপি নির্বাচনে তিনি বিজয়ী হতে পারলে সোলাদানা  ইউনিয়নকে মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলবেন। সম্প্রতি আগামী ইউপি নির্বাচনকে ঘিরে প্রতিদন্দী প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের হাতে রক্তাক্ত জখম হয়ে দির্ঘদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। ইতিমধ্যো কিছুটা সুস্থ হয়ে ইউনিয়নে এসে আবারো এলাকায় জন গনের সেবা করে যাচ্ছেন।

এনামুল হক সর্বদা গরিব ও মেহনতী মানুষের পাশে থাকেন। তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ গরিব দুঃখী ও মেহনতী মানুষের পাশে থেকে তাদের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে তাদের সুখ-দুঃখকে ভাগাভাগি করে নিয়ে সুনামের সহিত সম্মানে ভূষিত হয়ে আছেন। 

তিনি করোনাভাইরাস এর দ্বিতীয় ঢেউ প্রতিরোধেও  নিজের জীবনের তোয়াক্কা না করে, এলাকাবাসীকে  করোনাভাইরাস থেকে বাঁচাতে সর্বদা সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক দিকনির্দেশনা প্রদান করে আসছেন। শুধু তাই নয়, তিনি  করোনাভাইরাস এর মধ্যে তার নিজ অর্থায়নে গরিব দুঃখী অসহায় মানুষের মুখে তুলে দিয়েছেন খাদ্য। তার নিজস্ব অর্থায়নে ত্রান সামগ্রী, খাদ্য, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, মাস্ক বিতরণসহ তিনি এলাকায় ঘুরে ঘুরে মানুষকে মাস্ক পরার পরামর্শ সহ সরকারি বিধি নিষেধ মেনে চলার কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন।

এলাকাবাসী আরো জানান, আমরা এমন সৎ ও যোগ্য একজন মানুষকে আমাদের চেয়ারম্যান হিসাবে চেয়েছি আজ আমাদের মনে হচ্ছে আমরা এলাকাবাসী তা পেয়ে গিয়েছি। তাই আমরা এলাকাবাসী একজোট হয়ে আগামী ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১ইং তারিখ সারাদিন আনারস মার্কায় আমাদের মহা মূল্যবান ভোটটি দিয়ে এনামুল হককে চেয়ারম্যান করবো ইনশাআল্লাহ। শুধু তাই নয়,আমরা এলাকাবাসী আশাবাদী এনামুল হক সোলাদানা  ইউনিয়নকে উন্নয়নের ধারা বজায় অব্যাহত রাখবেন ও  একটি ডিজিটাল ইউনিয়ন গড়ে তুলবেন এটাই আমাদের প্রত্যাশা।

ফাহিম / একটিভ নিউজ