×
  • ঢাকা
  • রবিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২১, ৯ কার্তিক ১৪২৮
Active News 24

পাইকগাছায় বিধবা নারীকে ডাকাতি কালে ধর্ষণ মামলায় আটক ৪


এমদাদুল হক | খুলনা প্রতিনিধি প্রকাশিত: অক্টোবর ৭, ২০২১, ০৩:০৬ পিএম পাইকগাছায় বিধবা নারীকে ডাকাতি কালে ধর্ষণ মামলায় আটক ৪
সংগৃহীত

পাইকগাছায় ডাকাতি কালে বিধবাকে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় থানায় নারী শিশু আইনে মামলা হয়েছে। ঘটনাটি গত ২৮ সেপ্টম্বর গভির রাতে কালুয়া গ্রামের। মঙ্গলবার রাতে পুলিশ ভিন্ন ভিন্ন স্থান থেকে চার জনকে গ্রেফতার করেছে।

 

মামলা ও এলাকাবাসি সুত্রে জানা যায়, উপজেলা কালুয়া গ্রামের একজন বিধবা নারী (৩৫) গত ২৮ সেপ্টেম্বর রাতে খাওয়া দাওয়া শেষে শিশুপুত্রকে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়ে। রাত ২ টার দিকে চার জন মুখোশধারী ব্যক্তি দরজা ভেঙ্গে ঘরের ভিতর ঢুকে পড়ে। এ সময় দেশীয় অস্ত্রের মুখে ঘরের ভিতর মারপিট করে আহত করে।

 

পরে তার আলমারী ভেঙ্গে আনুমানিক দেড় লক্ষ টাকার স্বর্ণলঙ্কা ও দুটি মোবাইল ফোন লুট করে নেয়। তারা চলে যাওয়ার সময় ৩ জন জোর পূর্বক বিধবাকে ধর্ষণ করে।

 

ধর্ষিতা বিধবার প্রথমে পাইকগাছা হাসপাতাল ও পরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওসি সিসিতে ভর্তি করা হয়। গত ২৯ সেপ্টেম্বর বিধবা বাদী হয়ে পাইকগাছা থানায় অজ্ঞাত চার ব্যাক্তির নামে নারী শিশু ও ডাকাতি মামলার অভিযোগ এনে থানায় মামলা করে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আলামত জব্দ করে। 

 

সিনিয়র সহকরী পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলামের দিক নির্দেশনায় উপ-পুলিশ পরিদর্শক মোঃ জিয়াউর রহমান উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ও দিনে উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে অভিযান পরিচালনা করে কয়রার আমাদী গ্রামের শেখ জিয়াদ আলীর ছেলে শেখ অহেদুল ইসলাম(২৪), শেখ খলিলুর রহমানের ছেলে মোনায়েম হোসেন (২৮), মৃত অহেদ আলীর ছেলে রাকিবুল ইসলাম (২৬) চাঁদখালী ইউনিয়নের মৌখালী গ্রামের মৃত ইউসুফ ঢালীর ছেলে ফেরদৌস ঢালী (৫১)কে গ্রেফতার করে। সিনিয়র সহকরী পুলিশ সুপার মোঃ সাইফুল ইসলাম ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এজাজ শফি থানায় প্রেসব্রিফিং করে জানান, আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তাদের সাথে জড়িত পেশাদার ডাকাতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। গ্রেফতারকৃতদের উপজেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠানো হয়েছে। তারা ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তি মূলক জবানবন্ধি দিয়েছেন।

 


 

ফাহিম / একটিভ নিউজ