×
  • ঢাকা
  • সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর, ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
Active News 24

টঙ্গীতে রেল লাইনের উপরে অবৈধ বাজার


জাহাঙ্গীর আকন্দ | টঙ্গী (গাজীপুর) প্রতিনিধি প্রকাশিত: অক্টোবর ১৮, ২০২১, ০৪:৫১ পিএম টঙ্গীতে রেল লাইনের উপরে অবৈধ বাজার

টঙ্গীর বৌ-বাজার এলাকায় রেলের জমি দখল করে গড়ে তোলা হয়েছে স্থায়ী মার্কেট। প্রতিদিন এই রেলপথ ব্যবহার করে শতাধিক ট্রেন চলাচল করে এবং এই রেলক্রসিং দিয়ে প্রতিদিন যাতায়াত করে লক্ষাধিক মানুষ।

অথচ, এখানে লেভেল ক্রসিং বা প্রতিবন্ধকতা না থাকায় ঝুঁকি নিয়ে রেলপথ পারাপার হন পথচারী ও স্কুল কলেজের ছাত্র/ছাত্রীরা।
প্রায়ই বৌ-বাজার এলাকায় রেলে কাটা পড়ে পথচারী নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটে। রেলের দুইপাশ ও মাঝের অংশ দখল করে গড়ে উঠেছে ঝুঁকিপূর্ণ বাজার। 

ঐখানকার ছোট বড় প্রায় পাঁচ শতাধিক স্থায়ী-অস্থায়ী দোকান  থেকে প্রতি মাসে কয়েক লাখ টাকা চাঁদা তুলছে স্থানীয় প্রভাবশালী একটি চক্র। বছরে এই চাঁদার পরিমাণ কয়েক কোটি টাকা। এর একটি অংশ যাচ্ছে রেলওয়ে পুলিশের অসাধু কয়েক জন কর্মকর্তার পকেটে।


শুধু বাজার নয়, রেলওয়ের জায়গা দখল করে নির্মাণ করা হয়েছে বস্তি, রিকশার গ্যারেজ ও স্থায়ী মার্কেট। কিছু কিছু জায়গায় টিনের ঘের দিয়ে স্থাপনা নির্মাণ করে দখল পাকাপোক্ত করেছে দখলকারীরা। দোকান ভাড়া দিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে ওই চক্রটি।


জানা গেছে, বৌ-বাজার এলাকায় রেল লাইনের মাঝে এবং দুইপার্শ্বে দোকান ভাড়া নেওয়ার জন্য চক্রটিকে অগ্রিম বাবদ দিতে হয় সর্বনিম্ন ৩০ হাজার থেকে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত। প্রতিদিন এসব দোকান ও বিট থেকে ১০০-২০০ টাকা চাঁদা উত্তোলণ করা হয়। এ ছাড়া বিদ্যুৎ বিল বাবদ লাইট প্রতি নেওয়া হয় দৈনিক ৫০ থেকে ১০০ টাকা। বৌ-বাজার এলাকার রেলের জায়গা থেকে প্রতিদিন একাধিক প্রভাবশালী ব্যক্তির নামে চাঁদা তোলা হয়।


স্থানীয় বাসিন্দা ও দোকানদারদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, রেল লাইনের পূর্ব-দক্ষিণ পাশ ঘেঁষে সরকার বাড়ি রোডে গড়ে উঠেছে প্রায় ৫০টি দোকান ও গোডাউন। সিরিয়ালের প্রথম ১০টি দোকান থেকে দৈনিক ২০০ থেকে ২৫০টাকা করে বিএনপি নেতা সুমন সরকারের নেতৃত্বে চাঁদা উঠানো হয়।

এ বিষয়ে টঙ্গী রেলওয়ে ফাঁড়িতে যোগাযোগ করা হলে কাউকে পাওয়া যায়নি।

ফাহিম / একটিভ নিউজ