×
  • ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৮ আশ্বিন ১৪২৮
Active News 24

পিঠার দাওয়াতে ডেকে নিয়ে জামাই পেটাল শ্বশুরবাড়ির লোকজন


একটিভ নিউজ | ডেস্ক প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২১, ০৫:৪৮ পিএম পিঠার দাওয়াতে ডেকে নিয়ে জামাই পেটাল শ্বশুরবাড়ির লোকজন
জামাই পেটাল শ্বশুরবাড়ির লোকজন

মেয়ের জামাইকে পিঠা খাওয়াতে শ্বশুড়বাড়িতে ডেকে নিয়ে মুখে বালিশচাপা দিয়ে মারধরের ঘটনা ঘটেছে। সিরাজগঞ্জে নিজের শ্বশুরবাড়ির লোকজনদের বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ এনেছেন এক ব্যক্তি।

সিরাজগঞ্জে তাড়াশ উপজেলার কৃষ্ণপুর গ্রামে সোমবার (২১ ডিসেম্বর) এ ঘটনা ঘটে।

নির্যাতনের শিকার রাকিবুল ইসলাম পার্শ্ববর্তী চাটমোহর উপজেলার চন্ডিপুর গ্রামের ইসমাইল হোসেনের ছেলে। ২০০৮ সালে কৃষ্ণপুর গ্রামের আব্দুল জলিলের মেয়ে জুলেখা খাতুনের সাথে তার বিয়ে হয় তার।

এদিকে এ ঘটনার একটি ভিডিওচিত্র নিয়ে মঙ্গলবার (২২ ডিসেম্বর) থানায় অভিযোগ দায়ের  করেছেন নির্যাতনের শিকার রাকিবুল ইসলাম।

আরো পড়ুন: মাদারীপুরে এক তরুণীর নগ্ন ছবি ও ভিডিও ফেসবুকে!

নির্যাতনের ভিডিও চিত্রে দেখা যায়, রাকিবুলের মুখে বালিশ চাপা দেওয়া ও হাত-পা বাঁধার চেষ্টা করছেন তার স্ত্রী জুলেখা খাতুন, শ্যালিকা জায়দা খাতুন ও শ্যালক শামীম হোসেন। আর এসময় রাকিবুল ভয়ে চিৎকার করছেন।

রাকিবুল ইসলাম অভিযোগ করে জানান, বিয়ের পর থেকেই জুলেখা কারণে-অকারণে তার সাথে খারাপ ব্যবহার করে। এ নিয়ে তাদের দুজনের মাঝে মধ্যে মারধরের ঘটনাও ঘটে। মূলত এর প্রতিশোধ নিতেই তার শ্বশুর সোমবার পিঠা খাওয়ানোর জন্য ডেকে নিয়ে রাত ১১টার দিকে তিন সন্তানকে দিয়ে তাকে হত্যার চেষ্টা করেন। কিন্তু তার চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে প্রাণে বেঁচে যান তিনি।

এদিকে এ মারঘরের ঘটনার সময় পাশের ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন রাকিবুলের শ্যালিকা জায়দা খাতুনের স্বামী মেরাজ উদ্দিন। 

আরো পড়ুনঃ স্বামী হত্যা, বাদী ‘স্ত্রী’ যখন আসামি

ঘটনার বিষয়ে মেরাজ উদ্দিন বলেন, হঠাৎ রাকিবুলের চিৎকার তার কানে যায়। তাড়াতাড়ি তিনি উঠে এসে প্রথমে জানালা দিয়ে গোপনে ভিডিও করেন। পরে প্রতিবেশীদের সাথে নিয়ে তাকে উদ্ধার করেন।

তবে এ ঘটনায় রাকিবুলের স্ত্রী জুলেখা খাতুন বলেন, তাকে মারধর করতেন রাকিবুল। তাই একটা উচিত শিক্ষা দেওয়া হয়েছে।

এদিকে রাকিবুলের শ্বশুর আব্দুল জলিল ও শাশুড়ি ছানোয়ারা বেগম বলেন, এমন ঘটনার জন্য তারা নিজেরাও অনুতপ্ত। এজন্য তারা সন্তানদের যথেষ্ট শাসন করেছেন।

তাড়াশ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফজলে আশিক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ডেস্ক / একটিভ নিউজ