• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ০৪ মার্চ, ২০২১, ২০ ফাল্গুন ১৪২৭
Active News 24

প্রেমিকের ডাকে সাড়া দিয়ে গণধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রী


| ডেস্ক: প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২১, ০৫:৪৮ পিএম প্রেমিকের ডাকে সাড়া দিয়ে গণধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রী
প্রতীকী

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে প্রেমিক সেজে গভীর রাতে ডেকে নিয়ে এক স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। 

গ্রেপ্তারের পর সোমবার দুপুরে আটক অভিযুক্ত তিনজনকে কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেপ্তাররা হলো ঘোড়াঘাট উপজেলার ঘুঘুরা (ভোতরা পাড়া) গ্রামের মৃত লাল মিয়ার ছেলে নাইট গার্ড এবং ছদ্মবেশী প্রেমিক লাবু মিয়া (২৮), একই গ্রামের আহাম্মদ আলীর ছেলে রাজমিস্ত্রি আশরাফুল ইসলাম (৩৫), পৌর এলাকার বাউপুকুর গ্রামের বেল্লাল হোসেনের ছেলে রাজমিস্ত্রি ওমর ফারুক (২১) এবং রাইহান (২৫) ঘোড়াঘাট উপজেলার তেঁতুলতলা গ্রামের শেখের ছেলে।

ঘটনার বিষয়ে ওসি আজিমউদ্দিন জানান, সোমবার বিকেল ৫টার দিকে ধর্ষণের ঘটনায় আরেক সাবেক প্রেমিক রাইহানকে আটক করা হয়েছে।

আরো পড়ুন: শ্বশুর যাই করুক, নোবেল পেতে যাচ্ছেন জামাই!

ঘটনার বিষয়ে পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, ঘোড়াঘাট পৌর এলাকার বাউপুকুর গ্রামের এক শিক্ষার্থীর সাথে রাজু নামের এক ছেলের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। দুজনের মাঝে ফোনে কথোপকথনের বিষয়টি জানতে পারে লাবু নামে এক যুবক। লাবু কৌশলে ওই মেয়েটির ফোন নম্বর সংগ্রহ করে রাজু পরিচয়ে মেয়েটির সাথে মোবাইল ফোনে কথা বলে। 

এরপর শনিবার রাত তিনটার দিকে শিক্ষার্থীর বাড়ির পাশে লিচু বাগানে তাকে দেখা করতে ডাকে। বাগানে গিয়ে সে প্রেমিক রাজুর পরিবর্তে অন্য এক যুবককে দেখে চিৎকার করে এবং দৌড়িয়ে বাড়িতে পালানোর চেষ্টা করলে লাবুর সাথে বাগানে আগে থেকেই অবস্থান নেওয়া দুই সহযোগী ওমর ফারুক এবং আশরাফুল (১৭) তার মুখ চেপে ধরে। পরে লিচুর বাগানেই ওই তিনজন ওই শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ করে বাগানে ফেলে চলে যায়।

আরো পড়ুন: ক্ষমতা হস্তান্তর নিয়ে যা জানাল মিয়ানমার সেনাবহিনী

পুলিশ ও স্থানীয়রা আরো জানায়, রোববার সকালে ঘুম থেকে উঠে ঘরে মেয়েকে দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজির করে। এক পর্যায়ে বাড়ির পাশের লিচুর বাগানে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকা মেয়েকে উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে।

এরপর মেয়েটির মা ঘটনার বিষয়ে জানতে পেরে শুনে মেয়েকে নিয়ে থানায় যায়।

আরো পড়ুন: মিয়ানমারে জরুরি অবস্থা, সীমান্তে বিজিবির টহল

ঘোড়াঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ আজিম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ওই শিক্ষার্থীর সাথে যে ঘটনাটি ঘটেছে এর সাথে জড়িত চারজনকে আমরা আটক করেছি।

গ্রেপ্তারদের বিরুদ্ধে ঘোড়াঘাট থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে গণধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়েরপূর্বক সোমবার দিনাজপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এছাড়া ভিকটিমকের ডিএনএ টেস্ট করানোর জন্য দিনাজপুর মেডিকেলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ভিকটিমের পরিবারকে সব ধরনের আইনি সহযোগিতা দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

একটিভ নিউজ