×
  • ঢাকা
  • রবিবার, ১৬ মে, ২০২১, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

শরণখোলায় এক বনকর্মীর রহস্যজনক মৃত্যু!


আবু-হানিফ | বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি প্রকাশিত: এপ্রিল ৬, ২০২১, ১০:২৬ এএম শরণখোলায় এক বনকর্মীর রহস্যজনক মৃত্যু!

বাগেরহাটের শরণখোলায় রুহুল আমীন খাঁন (৪২) নামে এক বনকর্মীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। গত সোমবার (৫ এপ্রিল) সকাল ৮টার দিকে নিজ বাড়িতে অসুস্থ হঠাৎ হন তিনি। ১১টার দিকে হাসপাতালে নেওয়ার পরে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষনা করেন। পরে হাসপাতাল থেকে অস্বাভাবিক মৃত্যু কাগজ পেয়ে পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট মর্গে পাঠায়।

ওই বনকর্মী পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের দুবলা জেলেপল্লী টহল ফাঁড়িতে কর্মরত ছিলেন। তিনি শরণখোলা উপজেলার সাউথখালী ইউনিয়নের বকুলতলা গ্রামের আ. জব্বার খানের ছেলে। কর্মস্থল থেকে ছুটি নিয়ে গত রবিবার (৪ এপ্রিল) সকাল ১১টার দিকে বাড়িতে আসেন দুই মেয়ের বাবা ওই বনকর্মী।

আরো পড়ুন: এবার ইউপি চেয়ারম্যানের ইয়াবা সেবনের ভিডিও ভাইরাল

নিহতের ছোট বোন রোকেয়া বেগম বলেন, ভাবীর ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে ভাই চালের পোকাদমনের কীটনাশক ট্যাবলেট খেয়ে আত্মহত্যা করেছেন। ভাবীর স্থানীয় কারো সঙ্গে পরকীয়ার কথা শুনে ভাই অস্থির হয়ে পড়েন। বাবা আ. জব্বার খান ছেলের বউয়ের দিকে ইঙ্গিত করে বলেন, আমার ছেলেকে মেরে ফেলা হয়েছে। 

বাবার মৃত্যুতে বড় মেয়ে শুরভী আক্তার বিলাপ করতে করতে জানায় কিভাবে তার বাবা মারা গেল তা বলতে পারছে না। তবে, স্ত্রী শিল্পী বেগম বলেন, তার স্বামী স্ট্রোক করে মারা গেছেন।

আরো পড়ুন: ক্ষেত দিয়ে যাওয়া নিয়ে কথা কাটাকাটি, কৃষককে পিটিয়ে হত্যা

শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাইদুর রহমান বলেন, হাসপাতাল থেকে চিকিৎসকরা অস্বাভাবিক মৃত্যু একটি অভিযোগ থানায় পাঠান। পরে সেখান থেকে ওই বনকর্মী লাশ উদ্ধার করা হয়। মৃত্যু সঠিক কারণ জানতে ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে মরদেহটি। এ ব্যাপারে একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। 

এ ব্যাপারে পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের শরণখোলা রেঞ্জের সহকারী বনসংরক্ষক (এসিএফ) মো. জয়নাল আবেদীন বলেন, রুহুল আমীন দুবলা জেলেপল্লী টহল ফাঁড়িতে কর্মরত ছিলেন। গতকাল (রবিবার) ছুটি নিয়ে বাড়িতে যান বলে দুবলার টহল ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রহ্লাদ চন্দ্র রায় আমাকে জানান। নিহতের বাড়িতে স্টাফ পাঠিয়ে খোঁজখবর নেওয়া হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

ইউসুফ / একটিভ নিউজ