×
  • ঢাকা
  • রবিবার, ১৩ জুন, ২০২১, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮
Active News 24

নারায়ণগঞ্জে সেই মসজিদের পাশে বিস্ফোরণে দগ্ধ ১১


একটিভ নিউজ প্রকাশিত: এপ্রিল ২৩, ২০২১, ১০:২৭ এএম নারায়ণগঞ্জে সেই মসজিদের পাশে বিস্ফোরণে দগ্ধ ১১
প্রতীকী ছবি

নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লার তল্লা মসজিদের পাশের একটি তিনতলা বাড়িতে গ্যাসের লিকেজ থেকে বিস্ফোরণে নারী ও শিশুসহ ১১ জন দগ্ধ হয়েছে। তাদের শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনা ঘটে শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) সকাল ৮টার দিকে ।

ফায়ার সার্ভিসের উপপরিচালক মোহাম্মদ আরেফিন সংবাদ মাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মোহাম্মদ আরেফিন জানান, দগ্ধ পাঁচজনকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের নারায়ণগঞ্জ ১০০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ভবনের তৃতীয় তলায় গ্যাস লাইনের লিকেজ থেকে বিস্ফোরণ হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বিস্ফোরণে দগ্ধ ব্যক্তিরা হলেন হাবিবুর রহমান, লিমন, সাথী, মীম, মাহিরা (৩ মাস), আলেয়া, সোনাহার, শান্তি, সামিউল, মনোয়ারা ও অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তি। তাদের মধ্যে লিমন, সাথী, মীম, মাহিরা (৩ মাস) ও আলেয়াকে ঢাকায় বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে।

গত বছর ফতুল্লার পশ্চিম তল্লা মসজিদে জমে থাকা গ্যাস বিস্ফোরণে কেড়ে নিয়েছিল ৩৪ জনের প্রাণ।

প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিরা জানান, সাহরির সময় এ ঘটনা ঘটায় আশপাশের সবাই জেগে গিয়েছিল। অনেকে বালু, পানি দিয়ে তাৎক্ষণিক আগুন নেভানোর চেষ্টা করায় আগুন ছড়াতে পারেনি। তবে বিস্ফোরণে ভয়াবহতা এতটাই ছিল যে এ সময় ওই ফ্ল্যাটের এক পাশের দেয়ালও ধসে যায়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নেভানোসহ দগ্ধদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

ফ্ল্যাটের বাসিন্দা আবদুল্লাহ জানান, ঘুমের মধ্যেই হঠাৎ বিকট শব্দে একটি দরজা ভেঙে আমার ওপর এসে পড়ে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই দেখি পাশের ঘরে আগুন এবং দুটি ঘরের দেয়াল ধসে পাশের তিনতলা ভবনের ছাদে পড়ে আছে। বের হয়ে দেখি একটি পরিবারেরই ছয়জন দগ্ধ অবস্থায় কাতরাচ্ছে।

উপপরিচালক আবদুল্লাহ আল আরেফিন বলেন, বাড়িটির তৃতীয় তলায় বেশ কয়েকটি পরিবার বসবাস করে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, রাতে কেউ চুলার বার্নার বন্ধ না করেই ঘুমিয়ে পড়েন। এতে চুলা থেকে গ্যাস বের হয়ে রান্নাঘরসহ অন্যান্য ঘরে ছড়িয়ে জমাট বেঁধে থাকে। সাহরির সময় রান্নার জন্য চুলায় আগুন জ্বালালে গ্যাসের পাইপলাইনে বিস্ফোরণ ঘটে।

আবদুল্লাহ আল আরেফিন বলেন, এক শিশুসহ ছয় নারী ও চার পুরুষ আগুনে দগ্ধ হন। তাদের মধ্যে শিশুসহ পাঁচজনকে গুরুতর অবস্থায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে পাঠানো হয়। ছয়জনকে সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

সাইফুল বারী / একটিভ নিউজ