×
  • ঢাকা
  • সোমবার, ১৭ মে, ২০২১, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

টাঙ্গাইলে গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার


সাজ্জাদ হোসেন | টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি প্রকাশিত: এপ্রিল ২৭, ২০২১, ০৫:০৪ পিএম টাঙ্গাইলে গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলার কাশিল পশ্চিমপাড়া থেকে কনা আক্তার [২৪] নামের এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

আজ মঙ্গলবার [২৭ এপ্রিল] গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করা হয় বলে জানিয়েছেন বাসাইল থানার অফিসার ইনচার্জ [ওসি] হারুনুর রশিদ।

নিহত গৃহবধূর পরিবার জানায়, প্রায় পাঁচ বছর আগে কাশিল পশ্চিমপাড়া এলাকার বাবু মিয়ার দুবাই প্রবাসী ছেলে কবির মিয়ার সঙ্গে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার ঘারিন্দা ইউনিয়নের দরুন গ্রামের জয়নাল মিয়ার মেয়ে কনা আক্তারের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই তাকে যৌতুকের জন্য শাশুড়ি ও দুই ননাশের নানা নির্যাতন সইতে হয়।

আরো পড়ুন: নোয়াখালীতে ভাইয়ের ধর্ষণে ছোট বোন অন্তঃসত্ত্বা

এরপর তার শাশুড়ি কহিনূর বেগম ও স্বামী কবির মিয়া পুনরায় প্রবাসে পাড়ি জমান। ফলে ওই গৃহবধূ তার শিশু সন্তানকে নিয়ে বাকপ্রতিবন্ধী শ্বশুরের সঙ্গে বসবাস করছিলেন। এরমধ্যে এক ননাশের স্বামী অন্যত্র বিবাহ করায় ও আরেক ননাশের স্বামী প্রবাসে থাকায় তারা শ্বশুরবাড়ি ছেড়ে বাবার বাড়িতেই অবস্থান নেয়। সে থেকে দুই ননাশই গৃহবধূর ওপর নানা ছলে নির্যাতন চালাতে থাকে। 

সর্বশেষ সোমবার (২৬ এপ্রিল) সন্ধ্যায়ও ওই গৃহবধূ কনাকে তার দুই নুনাশ মিলে মারধর করে। পরে আজ (মঙ্গলবার) সকালে তার বসত ঘরে ঝুলন্ত অবস্থায় গৃহবধূর লাশ পাওয়া যায়। 

নিহত গৃহবধূর মা বলেন, রাতের কোনও এক সময় তারা আমার মেয়েকে হত্যা করে লাশ ঘরের ধন্নার সাথে ঝুলিয়ে রেখে আমাদের খবর দেয়। খবর পেয়ে ওই বাড়িতে গিয়ে দেখি ঘরের বাইরে থেকে তালা লাগানো অবস্থায় রয়েছে। আমি আমার মেয়ের হত্যার বিচার চাই।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আক্কাছ মিয়া বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশকে জানানো হয়। পরে পুলিশ এসে নিহতের লাশটি ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। এটা হত্যা নাকি আত্মহত্যা কিছু বলা যাচ্ছে না।

আরো পড়ুন: নামাজ শেষে বাড়ি ফেরার সময় ছেলের হাতে বাবা খুন

বাসাইল থানার অফিসার ইনচার্জ [ওসি] হারুনুর রশিদ বলেন, খবর পেয়ে নিহতের লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।

পরে লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেয়ে মৃত্যুর রহস্য জানা যাবে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

তুষার / একটিভ নিউজ