×
  • ঢাকা
  • শনিবার, ১২ জুন, ২০২১, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮
Active News 24

ইফতারিতে ঔষধ মিশিয়ে অজ্ঞান করে এতিম ছাত্রীকে ধর্ষণ


একটিভ নিউজ প্রকাশিত: মে ৯, ২০২১, ০১:২৬ এএম ইফতারিতে ঔষধ মিশিয়ে অজ্ঞান করে এতিম ছাত্রীকে ধর্ষণ
প্রতীকী ছবি

ইফতারিতে ঔষধ মিশিয়ে অজ্ঞান করে এতিম ছাত্রীকে ধর্ষণসুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজারে দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ করা হয়েছে। ভিকটিম শিক্ষার্থীকে ইফতারির সঙ্গে চেতনানাশক দ্রব্য খাইয়ে ধর্ষণ করা হয়।

উপজেলার বোগলাবাজার ইউনিয়নের বোগলা গ্রামে গত শুক্রবার (৭ মে) দিবাগত-রাতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ধর্ষক রিপন মিয়াসহ আরও দুজনকে আটক করেছে পুলিশ।

আরো পড়ুন: মসজিদে ইফতার খেতে গিয়ে প্রাণ হারালেন ৪ বছরের জোনায়েদ

ঘটনাসূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সন্ধ্যা উপজেলার বোগলাবাজার ইউনিয়নের কাঠালবাড়ি গ্রামের সুরুজ মিয়ার পুত্র রিপন মিয়া ইফতারিতে চেতনানাশক মিশিয়ে ওই স্কুলছাত্রীর বাড়িতে পাঠায়। ওই ইফতারি খাওয়ার পর স্কুলছাত্রী ও তার দাদা অজ্ঞান হয়ে গেলে মধ্যরাতে এসে রিপন তাকে ধর্ষণ করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ধর্ষক রিপনসহ তার ফুফাতো ভাই এবং নেশা বিক্রেতা জসিম উদ্দিনকে আটক করে।

আরো পড়ুন: চাচীর পরকীয়ার কথা জেনে যাওয়ায় ভাতিজাকে খুন

ভিকটিম শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে দোয়ারাবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ চিকিৎসা প্রদান করা হয়। উল্লেখ্য, দশম শ্রেণির ওই শিক্ষার্থীর মা বাবা কেউ বেঁচে নেই। সে দাদার সঙ্গে থাকে।

এ বিষয়ে দোয়ারাবাজার থানার ওসি (তদন্ত) মনিরুজ্জামান সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, ধর্ষকসহ আরও দুজনকে আটক করা হয়েছে। নেশা বিক্রেতা জসিম দীর্ঘদিন ধরে অজ্ঞান পার্টির সঙ্গে জড়িত। রিপনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা রুজু করার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

সাইফুল বারী / একটিভ নিউজ