×
  • ঢাকা
  • শনিবার, ১২ জুন, ২০২১, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮
Active News 24

২ হাজার টাকার জন্য বাবাকে পিটিয়ে হত্যা করা সেই ছেলে গ্রেফতার


একটিভ নিউজ প্রকাশিত: মে ৯, ২০২১, ০১:৫৭ পিএম ২ হাজার টাকার জন্য বাবাকে পিটিয়ে হত্যা করা সেই ছেলে গ্রেফতার
সংগৃহীত

বেশ কিছুদিন আগে পাবনার সাঁথিয়ায় লাঠির আঘাতে আহেজ প্রাং (৭০) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বাবাকে হত্যাকারী ছেলে আব্দুর রহিমকে (৪৩) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার (০৮ মে) দুপুরে রাজধানী থেকে আতাইকুলা থানা পুলিশের একটি দল তাকে গ্রেফতার করে। পরে রাত ৮টার দিকে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

নিহত আহেজ আতাইকুলা থানার হরিপুর রতনপুন গ্রামের মৃত ইমারত প্রামানিকের ছেলে।

এ ঘটনার বিষয়ে মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, আহেজ অভাবের কারণে ছেলে রহিমের কাছ থেকে ২ হাজার টাকা ধার নেন। ২২ এপ্রিল রাত ৯টার দিকে রহিম বাবার কাছ থেকে ধারের টাকা ফেরত চান। বাবা টাকা ফেরত দিতে না পারায় দুইজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে রহিম বাঁশের গোড়া দিয়ে বাবার মাথায় সজোরে আঘাত করে। 

আরো পড়ুন: ইফতারিতে ঔষধ মিশিয়ে অজ্ঞান করে এতিম ছাত্রীকে ধর্ষণ

এজাহার সূত্রে আরো জানা যায়, আঘাত পেয়ে বাবা সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে পড়ে যান। স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে  রামেক হাসপাতালে রেফার করে। রাজশাহী নেওয়ার পথে রাত ৩টার দিকে তিনি মারা যান। আতাইকুলা থানা পুলিশ ভোরে বৃদ্ধ আহেজের মরদেহ উদ্ধার করে। তখন থেকেই ছেলে রহিম পলাতক ছিল। 

ঘটনার পর নিহতের ভাই আব্দুল আউয়াল বাদী হয়ে আতাইকুলা থানায় পরেরদিন শুক্রবার (২৩) দুপুরে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এদিকে পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) রোকনুজ্জামান সরকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। 

আরো পড়ুন: সিলেটে ইফতারির জন্য নববধূকে ‘হত্যা’, স্বামী-শ্বাশুড়ি আটক

তিনি বলেন, এসপি স্যারের নির্দেশে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে আতাইকুলা থানার একটি দল ঢাকা থেকে ছেলেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আসামি বাবাকে হত্যা করার কথা স্বীকার করে বিজ্ঞ আদালতে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায়  স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

পাবনার পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান এ বিষয়ে বলেন, বাবাকে হত্যা করে পুলিশকে ফাঁকি দিয়ে গ্রেফতার এড়াতে ঢাকায় পালিয়ে যায় ছেলে। জেলা পুলিশের কঠোর নির্দেশনায় একটি অভিযানিক দল তাকে গ্রেফতার করে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায়।

বাবাকে হত্যা করা একটি নজিরবিহীন ঘটনা। সবাইকে মর্মাহত করেছে। অপরাধী যেই হোক তাকে শাস্তি পেতেই হবে, দুইদিন আগে আর পরে- বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

রেজাউল করিম / একটিভ নিউজ