×
  • ঢাকা
  • সোমবার, ০৮ মার্চ, ২০২১, ২৪ ফাল্গুন ১৪২৭
Active News 24

ডাক্তার ব্যস্ত! চিকিৎসা দিচ্ছেন নৈশ প্রহরী


একটিভ নিউজ | ডেস্ক: প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২১, ০৮:০৬ এএম ডাক্তার ব্যস্ত! চিকিৎসা দিচ্ছেন নৈশ প্রহরী
সংগৃহীত ছবি

সাধারণত কাটা-ছেঁড়া রোগীদের চিকিৎসার প্রয়োজনে জরুরি বিভাগে দায়িত্বরত উপ-সহকারী মেডিক্যাল অফিসার ও ব্রাদারদের সেলাই করার কথা থাকলেও তা করছেন নৈশ নিরাপত্তা প্রহরী।

ঢাকার ধামরাইয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কাটা-ছেঁড়া রোগীদের প্রথমিক চিকিৎসার বেলায় দেখা গেছে এমনি চিত্র।

জানা যায়, নৈশ নিরাপত্তা প্রহরী দিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কাটা-ছেঁড়া রোগীদের চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে দীর্ঘদিন ধরেই। জরুরি বিভাগে কাটা-ছেঁড়া রোগী আসলেই ডাক পড়ে নৈশ প্রহরী আবদুর রশিদের। হাতে-পায়ে কাটা-ছেঁড়া অধিকাংশ রোগীদের ইনজেকশন ও সেলাই করে থাকেন নৈশ নিরাপত্তা প্রহরী আবদুর রশিদ। শুধু হাতে পায়ে নয় তাকে দিয়ে স্পর্শকাতর স্থানে চেতনানাশক ইনজেকশন পুশ করান জরুরি বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসকরা। 

আরো পড়ুন: ধর্ষণকান্ডে মীমাংসার বুদ্ধি দিয়ে ফেঁসে গেল পুলিশ

ঘটনাটি তদন্তে গিয়ে দেখা যায়, কালামপুর গ্রামের জসিম উদ্দিনের রক্তাক্ত মাথা পরিষ্কার ও মাথায় ইনজেকশন পুশ করছেন আবদুর রশিদ। পরে মাথার কাটা স্থানে সেলাইও করেন তিনি। অথচ একইসময় ওই কক্ষেই একটি চেয়ারে বসে যার যার কাজ করতে দেখা যায় বোরকা পরিহিত জরুরি মেডিক্যাল অফিসার, উপ-সহকারী মেডিক্যাল অফিসার ও এক ব্রাদারকে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নৈশ নিরাপত্তা প্রহরী আবদুর রশিদ বলেন, ‘আমাকেই দিয়েই বেশির ভাগ কাটা-ছেঁড়া রোগীদের ইনজেকশন ও সেলাই করিয়ে থাকেন স্যারেরা।’ 

আরো পড়ুন: রিকশার চাকা গর্তে, মায়ের সামনেই পড়ে গিয়ে মারা গেল শিশু!

তবে আহত জসিম উদ্দিনের ছেলে সিয়াম জানান, চিকিৎসকরা কক্ষে বসা থাকলেও আমার বাবাকে তারা একটু দেখেও নাই। ইনজেকশন পুশ ও সেলাই করেছেন নৈশ প্রহরী আবদুর রশিদ। 

অন্যদিকে একজন নৈশ প্রহরী দিয়ে কেন এসব কাজ করানো হচ্ছে তা জানতে চাইলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উল্টো এ প্রতিবেদককে বলেন, আপনার সমস্যা কি? 

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নুর রিফফাত আরার এ বিষয়ে বলেন, স্বাভাবিকভাবে ব্রাদার বা উপ-সহকারী মেডিক্যাল অফিসাররা সেলাই করার কথা। কিন্তু যদি নৈশ প্রহরী দিয়ে সেলাই কাজ করিয়ে থাকে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সূত্র: কালের কন্ঠ।

ডেস্ক / একটিভ নিউজ