×
  • ঢাকা
  • শনিবার, ০৮ মে, ২০২১, ২৪ বৈশাখ ১৪২৮

রিসোর্টে যাওয়ার কারণ জানালেন মামুনুল


একটিভ নিউজ প্রকাশিত: এপ্রিল ৩, ২০২১, ১০:৩৮ পিএম রিসোর্টে যাওয়ার কারণ জানালেন মামুনুল
সংগৃহীত

হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে তার দ্বিতীয় স্ত্রীসহ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের একটি রিসোর্টে অবরুদ্ধ করে স্থানীয়রা। এরপর শনিবার (৩ এপ্রিল) সন্ধ্যার দিকে তার সমর্থক ও হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে গেছেন।  

এ বিষয়ে মামুনুল হক সংবাদকর্মীদেরকে বলেন, ‘আমাদের বিয়ে হয়েছে দুই বছর আগে। আমি সোনারগাঁয়ে ঘুরতে এসেছিলাম। ঘোরার মাঝে বিশ্রাম নেওয়ার জন্য রিসোর্টটি বুক করা ছিল। আমি যেখানে যাই সেখানেই মানুষ ভিড় করে তাই আলেম-ওলামাদের অবহিত করে এখানে আসিনি। আর যেহেতু এটি আমার পারিবারিক ভ্রমণ তাই সেভাবে কাউকে জানানো হয়নি। কারণ এমন অবস্থাও এখন দেশে হয় আমার জানা ছিল না যে স্ত্রী নিয়ে ঘোরা যাবে না।’

মামুনুল হক বলেন, ‘আমার সঙ্গে পর্যাপ্ত দুর্ব্যবহার করা হয়েছে। আমি এর জন্য আইনি পদক্ষেপ নেবো। আইনি পদক্ষেপের কথা বলার পর তারা আমাকে বলে আমাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেবেন, আমরা কে জানেন? আমার কাছে প্রমাণ আছে। তবে আমি তো কাবিননামা নিয়ে ঘুরবো না। কেউ কি স্ত্রী নিয়ে বের হলে কাবিননামা নিয়ে ঘুরে?’

আরো পড়ুন: মামুনুলের ফোনালাপ ফাঁস, স্ত্রীকে আগেই সাবধান করেছিলেন মামুনুল

প্রসঙ্গত, শনিবার বিকেলে সোনারগাঁয়ের রয়েল রিসোর্টে আসেন মামুনুল হক। এসময় তার সাথে একজন নারী থাকার বিষয়টি খেয়াল করে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু, ছাত্রলীগ নেতা সোহাগ রনিসহ অনুগামীরা রিসোর্টের পঞ্চম তলার ৫০১ নম্বর কক্ষে তাকে অবরুদ্ধ করে ফেলেন। তারা মামুনুল হকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। খবর পেয়ে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা গিয়ে সেখানে হাজির হন।

নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ জায়েদুল আলম এ বিষয়ে জানান, মামুনুল হক নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানার রয়েল রিসোর্টের একটি কক্ষে এক নারীসহ অবস্থান করছেন এমন খবরে স্থানীয় লোকজন রিসোর্ট ঘেরাও করে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে যায়। মামুনুল হক পুলিশকে জানিয়েছেন সঙ্গে থাকা নারী তার দ্বিতীয় স্ত্রী। পরে পুলিশ তাকে নিরাপত্তা দিয়ে সেখান থেকে উদ্ধার করেছে।

রেজাউল করিম / একটিভ নিউজ