×
  • ঢাকা
  • বুধবার, ১৯ মে, ২০২১, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

‘ছবি-ভিডিও উদ্ধার করতে মুনিয়াকে হত্যা করা হয়’


একটিভ নিউজ প্রকাশিত: এপ্রিল ২৮, ২০২১, ০৭:২৮ পিএম ‘ছবি-ভিডিও উদ্ধার করতে মুনিয়াকে হত্যা করা হয়’
ফাইল ছবি

রাজধানীর গুলশানের একটি ফ্ল্যাট থেকে কলেজছাত্রী মোসারাত জাহান মুনিয়ার লাশ উদ্ধার নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা চলছে দেশের সর্বত্র, সেইসাথে চলছে প্রতিবাদ। এদিকে এ ঘটনায় মুনিরার পরিবারের দাবি, মুনিয়ার মৃত্যু একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। দীর্ঘ সম্পর্কের কিছু ছবি, ভিডিও এবং ডকুমেন্টস মুনিয়ার মোবাইল ফোনে সংগ্রহ ছিল। ডকুমেন্টগুলো উদ্ধারের জন্য ৫০ লাখ টাকা চুরির মিথ্যা অপবাদ, মানসিকভাবে হ্যারেজমেন্ট করা হয়।

মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত জাহান বুধবার (২৮ এপ্রিল) সকালে এই কথাগুলো বলেন।

নুসরাত জাহান বলেন, ‘সর্বশেষ গত ৪ এপ্রিল কুমিল্লা নগরীর বাগিচাগাঁও এলাকায় অরণী ভবনে মোসারাত জাহান মুনিয়া বোনের বাসায় আসে। এরপর ১২ এপ্রিল ঢাকায় ফিরে যায়। ফেরার সময় বলে গিয়েছিল সায়েম সোবহান আনভীর দেশে আসছেন। আমাকে বলছে ঢাকায় ফিরে যাওয়ার জন্য।’

আরো পড়ুন: কার্গো বিমানে দেশ ছেড়েছেন আনভীরের স্ত্রী

মুনিয়ার বড় বোন নুসরাত আরও বলেন, ‘মুনিয়া কুমিল্লায় যে কয়দিন ছিল প্রায় বলতো, আনভীর তার মোবাইল ফোন অসংখ্যবার ছিনিয়ে নেওয়ার এবং লুকানোর চেষ্টা করে। বনানী থেকে গুলশানে ওঠার আগে কুমিল্লায় চলে আসে মুনিয়া। তখন সে বলেছিল, আনভীর মোবাইল ফোন নেওয়ার চেষ্টা করেছিল, কিন্তু পারেনি। মোবাইলে থাকা সম্পর্কের ডকুমেন্টস উদ্ধারের জন্যই আনভীর আমার বোনকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে।’

প্রসঙ্গত, গত সোমবার (২৬ এপ্রিল) সন্ধ্যার পর গুলশান ২ নম্বরের ১২০ নম্বর সড়কের একটি ফ্ল্যাট থেকে মোসারাত জাহান মুনিয়ার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পুলিশ কর্তৃক ওই কলেজছাত্রীর মরদেহ উদ্ধারের পর তার বড় বোন নুসরাত জাহান বাদী হয়ে রাজধানীর গুলশান থানায় বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীরকে একমাত্র আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন।

রেজাউল করিম / একটিভ নিউজ